• শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ধারের টাকায় ১ম নির্বাচন করা পলকের অঢেল টাকা, বাড়ি, গাড়ি, অস্ত্র

  আনোয়ার পারভেজ, নাটোর

০৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৪:৫৬
পলক

নাটোর-৩ আসনের সংসদ সদস্য, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের হলফনামা অনুযায়ী ধার করা টাকায় প্রথমবার সংসদ নির্বাচন করলেও এখন তার নিজের ও স্ত্রীর রয়েছে কোটি কোটি টাকা, বাড়ি, গাড়ি ও বৈধ অস্ত্র।

পলকের স্ত্রী কোনো চাকুরী বা ব্যবসা না করেও গত ১৫ বছরের প্রায় তিন কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। পলক এই আসনের টানা তিন বারের সংসদ সদস্য। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন। এবারের হলফনামায় পলক দেখিয়েছেন, তার কাছে নগদ টাকা আছে ১ কোটি ১৭ লাখ ৪১ হাজার ১১২ টাকা, ব্যাংকে জমা আছে ৬ লাখ ৬৫ হাজার ৫৫০ টাকা। তার স্ত্রীর কাছে নগদ আছে ৪৫ লাখ ৬৫ হাজার ৯৯১ টাকা। ব্যাংকে আছে ৫৪ লাখ ২০ হাজার ৮০৬ টাকা।

এবারের হলফনামায় উল্লেখ করা তথ্য অনুযায়ী, জুনাইদ আহমেদ পলকের কাছে বৈদেশিক মুদ্রা ১০ হাজার ইউ.এস ডলার রয়েছে। প্রতিমন্ত্রীর স্থায়ী আমানতে মোট বিনিয়োগ করা আছে ১ কোটি ২৫ লাখ ২৯ হাজার ৫১৫ টাকা। তার স্ত্রীর ১ কোটি ৬২ লাখ ৮১ হাজার ৮২৯ টাকা। প্রতিমন্ত্রীর ১ কোটি টাকা মূল্যের একটি জিপ গাড়ি রয়েছে। নিজের ২ ভরি ও স্ত্রীর ৩০ ভরি স্বর্ণ আছে। তার ১ টি শর্টগান ও ১ টি পিস্তল আছে যার মূল্য ২ লাখ ৯০ হাজার টাকা।

হলফনামায় পেশা হিসেবে প্রতিমন্ত্রী আইনজীবী লিখলেও সেই খাত থেকে এই সময়ে তিনি কোনো আয় করেননি। প্রতিমন্ত্রী কৃষি খাত থেকে বাৎসরিক ৪৮ হাজার টাকা, বাড়ি-দোকান-অ্যাপার্টম্যান্ট ভাড়া ৬০ হাজার, শেয়ার-সঞ্চয় থেকে ৭ লাখ ৭৫ হাজার ৭৬৪ টাকা, চাকুরী (প্রতিমন্ত্রী হিসেবে) ২১ লাখ ৩৬ হাজার ৫০৪ টাকা এবং বিভিন্ন টেলিভিশনে টকশো করে ২ লাখ ২ হাজার টাকা বছরে আয় করেন। প্রতিমন্ত্রীর স্ত্রী কৃষি খাত থেকে ১ লাখ ৯০ হাজার ৮৯০ টাকা, বাড়ি-দোকান-অ্যাপার্টম্যান্ট ভাড়া থেকে ৫ লাখ ৭৬ হাজার টাকা এবং শেয়ার-সঞ্চয় থেকে ১১ লাখ ২৩৭ টাকা আয় করেন।

প্রতিমন্ত্রীর নামে কৃষি জমি ২.৪৩ একর, অকৃষি জমি সিংড়ায় ০.৫০ শতাংশ, পূর্বাচলে রাজউকের ১০ কাঠা প্লট রয়েছে। ৪ শতাংশ জমির উপর দোতলা পৈত্রিক বাড়ি যার নিচে ৪ টি দোকান ও একটি গুদাম রয়েছে। এছাড়া স্ত্রীর নামে কৃষি জমি রয়েছে ৯একর এবং অকৃষি জমি রয়েছে এক একরের বেশি, ঢাকার শেওড়া পাড়ায় দুটি দোকান রয়েছে। স্ত্রীর নামে ঢাকায় ১৭২০ বর্গফুটের একটি ফ্লাট থাকলেও দাম কত তা তার জানা নেই। স্বামীর বাড়িতে ৫০ লাখ টাকা বিনিয়োগ ও মধুমতি ব্যাংক লিমিটেড মতিঝিল শাখা থেকে গাড়ীর লোন ৫ লাখ ৩২ হাজার ৮৬১ টাকা 'দায় এর কথা উল্লেখ রয়েছে হলফনামায়। আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পত্রের সঙ্গে তার দাখিল করা হলফনামা বিশ্লেষণ করে এ তথ্য পাওয়া গেছে। তবে তার প্রতিপক্ষরা বলেছেন বাস্তবে এই সম্পদের পরিমান আরও অনেক বেশি।

২০১৮ সালের নির্বাচনের সময় দেওয়া হলফনামা জমা দেয়ার সময় তার কাছে নগদ টাকা ছিল ৯ লাখ ১৭ হাজার ২৪৩ টাকা। স্ত্রীর ছিল ৬ লাখ ৭৯ হাজার ৫৬০ টাকা। স্বামী-স্ত্রী দুজনেরই নগদ টাকার পরিমাণ বেড়েছে বহুগুণ। তবে কমেছে পলকের ব্যাংকে টাকার পরিমাণ। ২০১৮ সালে পলকের ব্যাংক হিসেবে ছিল ৬২ লাখ ২৭ হাজার ৬৬৯টাকা। আর স্ত্রীর ছিল ৩১ লাখ ৩৭ হাজার ৪৩২ টাকা। বর্তমানে ব্যাংকে তার প্রায় ছয় লাখ আর স্ত্রীর ৪৫ লাখ টাকা রয়েছে। এদিকে ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দাখিলকৃত হলফনামায় প্রতিমন্ত্রী বার্ষিক আয় দেখিয়ে ছিলেন ১৮ লাখ ২ হাজার ৭৫২ টাকা। তখন তার স্ত্রীর নগদ টাকা ছিলো ৭ লাখ ৮ হাজার ৩০০ টাকা। অস্থাবর সম্পদ হিসেবে সেসময় প্রতিমন্ত্রীর কাছে নগদ টাকা ছিল ২ লাখ। ব্যাংকে ছিল ৪ লাখ ৬১ হাজার ৪০৪ টাকা, শেয়ার ৬ লাখ ৯৯ হাজার টাকা, ৪৪ লাখ টাকার ১ টি গাড়ি স্থাবর সম্পদ হিসেবে সেসময় প্রতিমন্ত্রীর নামে ছিল কৃষি জমি ৭ বিঘা ১১ শতাংশ, অকৃষি দান সূত্রে ৪ শতাংশ ও একটি দোতলা বিল্ডিং ও ৪টি দোকান ছিলো।

১৫ বছর আগে ২০০৮ সালে তিনি যখন দেশের সর্বকনিষ্ঠ সদস্য হিসেবে প্রথম বারের মতো জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করেন সেই হলফনামা অনুযায়ী তখন তার কৃষি জমি ছিল এক বিঘা আর ভিটা জমি ১৮ শতাংশ। প্রথম নির্বাচনে ব্যয়ের জন্য তিনি নিজের আইন পেশা থেকে আয় ৫০ হাজার টাকা এবং ৫ স্বজনের নিকট থেকে ধার করেন আড়াই লাখ টাকা। বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম রমজানসহ অন্যান্য ১৮ ব্যক্তির নিকট থেকে সাড়ে ৬ লাখ ২০ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে ভোটের খরচ চালাবেন বলে তখন হলফনামায় উল্লেখ করেছিলেন। তখন তার নিজের নগদ টাকা ছিলো ৩০হাজার, তার স্ত্রীর ছিলো ৫০হাজার টাকা। তার নিজের ব্যাংকে জমা ছিলো ২০হাজার আর তার স্ত্রীর ছিলো ১০হাজার টাকা। তখন তার নিজের কোন বৈদেশিক মুদ্রা ছিলো না, সঞ্চয়পত্র ছিলো মাত্র ১৮হাজার টাকার। তার স্ত্রীরও কোন সঞ্চয়পত্র ছিলো না। প্রসঙ্গত তখন তার স্ত্রী আরিফা জেসমিন কনিকা শিক্ষকতা করলেও এখন করেন না।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: inbox.odhikar@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড