• বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সাংবাদিক শামসুজ্জামানের মুক্তির দাবিতে জাবিতে মানববন্ধন

  জাবি প্রতিনিধি

৩১ মার্চ ২০২৩, ১৩:১০
সাংবাদিক শামসুজ্জামানের মুক্তির দাবিতে জাবিতে মানববন্ধন

প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক শামসুজ্জামান শামসকে গভীর রাতে বাসা থেকে তুলে নেওয়ার ৩৫ ঘণ্টা পর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে হাজির করার প্রতিবাদে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) মানববন্ধন হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (৩০ মার্চ) বেলা তিনটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার সংলগ্ন সড়কে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির (জাবিসাস) ব্যানারে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও বিভিন্ন প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনের শতাধিক নেতাকর্মী অংশ নেন।

মানববন্ধন থেকে তিনটি দাবি জানানো হয়। দাবিগুলো হলো-

শামসুজ্জামানের নিঃশর্ত মুক্তি, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে হওয়া মামলা প্রত্যাহার এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করা।

মানববন্ধনে জাবি শিক্ষক সমিতির যুগ্ম সম্পাদক বোরহান উদ্দিন বলেন, সরকারের দায়িত্ব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড পরিচালনা করা নয়, তাদের দায়িত্ব মানুষের জানমালের নিরাপত্তা দেওয়া। জনগণের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে সরকার আজ রাষ্ট্রকেই অস্বীকার করছে।

সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক শামছুল আলম বলেন, গণতন্ত্রের মূল স্তম্ভ হলো অন্যের মতামতে শ্রদ্ধা করা। কিন্তু আমরা দেখছি দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি অথচ, তা বলার অধিকার নেই। শামসুজ্জামানকে গ্রেফতার করে মূলত অন্যদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে। এই ফ্যাসিবাদ একসঙ্গে রুখে দিতে হবে।

এছাড়াও গভীর রাতে বিনা ওয়ারেন্টে শামসুজ্জামানকে তুলে নেওয়ার এই ঘটনা সাংবাদিক ও দেশের নাগরিকদের জীবনের নিরাপত্তার সাংবিধানিক অধিকার ক্ষুণ্ণ করেছে বলেও উল্লেখ করেন বক্তারা।

ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক আনিছা পারভীন জলি বলেন, প্রথমেই সাংবাদিক শামসের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি। জাহাঙ্গীরনগরের সাবেক ছাত্র হিসেবে তার মুক্তি চাই না। তিনি একজন একনিষ্ঠ সাংবাদিক এ জন্যই তার মুক্তি চাই। করিমুন নেসা তার প্রথম সন্তানকে হারিয়েছে রাষ্ট্রের কাজে, আরেক ছেলে দেশের মানুষের কথা বলত সেও এখন কারাগারে। এই যদি হয় দেশের স্বাধীনতা তাহলে দেশ কীভাবে চলবে।

সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের সভাপতি সহযোগী অধ্যাপক রাকিব আহমেদ বলেন, সাংবাদিক শামসের গ্রেফতার হওয়ার মতো ঘটনা অতীতেও এদেশে ঘটেছে। আমরা এসব ঘটনা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা করেছি বিভিন্ন সময়। সংবাদকর্মীরা যদি নির্বিঘ্নে কাজ করতে না পারে, তাহলে গণতন্ত্র তার মতে করে চলতে পারে না।

তিনি আরও বলেন, যেখানে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নেই সেখানে গণতন্ত্র ঠিক থাকে কীভাবে। শামসের আটক করার বিষয়টি অত্যন্ত নিন্দনীয় এবং ন্যক্কারজনক হয়েছে। ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট বাতিল করা উচিত। সাংবাদিকদের বিভিন্ন বিষয় সমাধানের জন্য প্রেস কাউন্সিল রয়েছে, সেটিকে কার্যকর করা দরকার।

সমাপনী বক্তব্যে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মো. বেলাল হোসেন বলেন, গত দুই দিনে আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ফ্যাসিবাদী মানসিকতার তামাশা লক্ষ্য করলাম। এই মানসিকতা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়নে ক্ষমতা কাঠামোকে উৎসাহিত করেছে। যেটি এখন সাংবাদিকতার যম হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। এর ফলশ্রুতিতেই আজ শামস ভাই কারাগারের অন্ধকার প্রকোষ্ঠে।

তিনি আরও বলেন, সাংবাদিকদের এ ধরনের নিয়মিত আটকের ঘটনা আমাদের আতঙ্কিত করেছে। এসব নিপীড়ন, হয়রানির ঘটনা তরুণদের সাংবাদিকতা পেশা হিসেবে বেছে নিতে আতঙ্কের পাহাড় হিসেবে কাজ করছে। এতে বাড়ছে শেলফ সেন্সরশিপ। কমছে সাংবাদিকতায় সাহসীদের পদচারণা। এভাবেই পরিকল্পিত তৈরি হচ্ছে সাহসের দুর্ভিক্ষ।

জাবিসাসের সাধারণ সম্পাদক আলকামা আজাদের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক সোহেল রানা, ছাত্র ইউনিয়নের বিশ্ববিদ্যালয় সংসদের সাধারণ সম্পাদক অমর্ত্য রায়, জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সাধারণ সম্পাদক তাপসী দে প্রাপ্তি, ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি জহির ফয়সাল, বণিক বার্তার বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি মেহেদী মামুন এবং মানবকণ্ঠের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি নাছির উদ্দিন শিকদার।

মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক উজ্জ্বল কুমার মণ্ডল, সহকারী অধ্যাপক মৃধা মো. শিবলী নোমান, জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি সৌমিক বাগচীসহ প্রমুখ।

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- inbox.odhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: inbox.odhikar@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড