• বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ইবিতে ভিসির পর রেজিস্ট্রারের কণ্ঠ সদৃশ অডিয়ো ফাঁস

  ইবি প্রতিনিধি

১৫ মার্চ ২০২৩, ১৫:৪৪
ইবিতে ভিসির পর রেজিস্ট্রারের কণ্ঠ সদৃশ অডিয়ো ফাঁস

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) সাবেক ডাইরেক্টর অব প্লানিং (পিডি) ও বর্তমান ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এইচ এম আলী হাসান ও মঈন নামে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির কণ্ঠ সাদৃশ্য অডিয়ো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার (১৪ মার্চ) মধ্যরাত থেকে এই অডিয়ো সাথী খাতুন নামে একটি আইডি দিয়ে প্রচার করা হচ্ছে। এ সময় লেনদেন সংক্রান্ত একই অডিয়োতে পরপর চারটি ভিন্ন ভিন্ন সময় কথোপকথন শোনা যায়।

অডিয়োটি চারটি সময়ের কথোপকথন একসাথে সংযুক্ত করে ২ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের একটি অডিয়ো প্রকাশ হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। অডিয়োর প্রথম অংশে শোনা যায় মঈন নামের একজন বলেন, স্যার আসসালামু আলাইকুম স্যার। আমি মঈন বলছিলাম। স্যার আজকে তো ওইটা জমা দিয়ে দিলাম টাকা কোথায় কখন প্লেস করবো আপনাকে, বললে আমি ওইভাবে পিপারেশন নিতাম আরকি।

এ সময় বর্তমান ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এইচ এম আলী হাসান সাদৃশ্য কণ্ঠে বলেন, আপনি তিনটার সময় কুষ্টিয়া এসে দিতে হবে। তখন মঈন বলেন, তিনটার সময় স্যার পারবো না। সাড়ে চারটার সময় পারবো। আলী হাসান বলেন, সাড়ে চারটার সময়ই দিয়েন। মঈন, জ্বী স্যার সাড়ে চারটার সময় পাবো। চার লাখ টাকা পারবো আপনার টোটাল টাকাটাই পাবো কিন্তু আপনার চার লাখ টাকা সাড়ে চারটা থেকে পাবো পাঁচটা সাড়ে পাঁচটার ভেতর মধ্যে দিয়ে দিব। আলী হাসান, ফোনে এগুলো বলা দরকার নাই। মঈন, আমি সেইফ জায়গায় আছি। আলী হাসান, না না ফোনে এগুলো বলার দরকার নেই। মঈন, ওহ আচ্ছা, আচ্ছা ঠিক আছে। আলী হাসান বলেন, আমি শুধু ফোনে বলে দিব কোনো জায়গা। মঈন ,ওকে ধন্যবাদ স্যার।

অডিয়োর দ্বিতীয় অংশে রেজিস্ট্রার আলী হাসান বলেন, কে বলছেন? বিপরীত পক্ষ থেকে বলেন, মঈন সাহেব বলছিলাম, আপনি কে বলছিলেন? আলী হাসান, আমি ডাইরেক্টর প্লানিং বলছিলাম। মঈন, ও আচ্ছা স্যার। ওইটা সাড়ে চারটার দিকে পাবেন। আলী হাসান, আচ্ছা ঠিক আছে। ওইটা একটু দেখেশুনে বলবেন। মঈন, না স্যার বলবো না। আমি শুধু ইঙ্গিত দিব আপনাকে। যে আমার হয়ে গেছে আমি কোথায় আসবো। আলী হাসান, আচ্ছা ঠিক আছে।

অডিয়োর তৃতীয় অংশে রেজিস্ট্রার আলী হাসান মঈনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, হয়েছে? মঈন, না এখনো হয়নি স্যার, বসে আছি ব্যাংকে। কনফার্মেশনের জন্য বসে আছি ঢাকার। এ সময় আলী হাসান বলেন, আচ্ছা, আমি আছি শহরের ভেতরেই আছি।

অডিয়োর চতুর্থ অংশে মঈন বলেন, আসসালামুয়ালাইকুম স্যার। আলী হাসান, কি অবস্থা? মঈন, স্যার একটু অপেক্ষা করতে হবে স্যার একটু অপেক্ষা। কোথাও বসে চা টা খান। আলী হাসান, কতক্ষণ লাগবে আর? মঈন, লাগবে আধা ঘণ্টা লাগবে স্যার। আলী হাসান, কত কত? মঈন বলেন, ঢাকা থেকে ক্লিয়ারেন্স নিতে হয়েছে স্যার। আলী হাসান, আরে বাবা এদিকে ব্যাংক বন্ধ করে দিব তো। মঈন, আরে বইলেন না। ঢাকা থেকে আবার ক্লিয়ারেন্স নিতে হয়েছে। কিভাবে যে করেছি আল্লাহ ছাড়া কেউ জানে না। আপনি অল্প একটু অপেক্ষা করেন স্যার। একটু অপেক্ষা করেন আসতেছি।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি এমদাদুল আলম বলেন, বিষয়টা নিয়ে আমরা খুবই বিব্রত। আমরা প্রাথমিকভাবে তার কণ্ঠ সাদৃশ্য পেয়েছি। কর্মকর্তা সমিতির একটি জরুরি মিটিং ডেকেছি, মিটিংয়ে যে সিদ্ধান্ত হবে সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমরা উপাচার্য কাছে বিষয়টি উপস্থাপন করব।

এ বিষয়ে কর্মকর্তা সমিতি বিতর্কিত হয়ে গেল বলে জানান তিনি। বিষয়টি নিয়ে রেজিস্ট্রার এইচ এম আলী হাসান বলেন, আমি বিষয়টি সম্পর্কে অবগত না। এমন ঘটনা ঘটলে আইনি পদক্ষেপের নিতে পারি। দেখি বিষয়ে দেখি কি করা যায়।

উল্লেখ্য, এর আগে সম্প্রতি কয়েকদিন ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালামের কণ্ঠ সদৃশ একাধিক অডিয়ো ফাঁস হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। এছাড়াও এ সকল ঘটনায় জড়িত নেপথ্যের মানুষদের খুঁজতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- inbox.odhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: inbox.odhikar@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড